Bajaj CT 110X

Bajaj CT 110X শক্তি আর আরামের এক নিখুঁত মিশ্রণ, 96 কিমি/লিটার মাইলেজ

Bajaj CT 110X বাজাজের নতুন চমক : বাজাজ মোটরস বহুদিন কার নির্ভরযোগ্য বাইক নির্মাতা কোম্পানি। তাদের সিরিজের অনেক মডেলই আছে, যেমন: প্লাটিনা, ডিসকভার এবং পালসার বহু বাইক ব্যবহারকারীদের মন কেড়েছে।এইবার এই সংস্থা আনতে চলেছে তাদের জনপ্রিয় সিটি 110 সিরিজের নতুন মডেল 110X, এই বাইকটি আপনার রোজকার যাতায়াতে আরাম ও নিরাপত্তা দুটোই নিশ্চিত করে।

Bajaj CT 110X
__Bajaj CT 110X

বাজাজ সিটি 110 এক্স বাইকটি শহরের রাস্তার জন্য একটা পারফেক্ট পার্টনার হতে পারে। শক্তি, মাইলেজ, আরাম আর নিরাপত্তা – সবকিছু মিলে এই বাইকটি বাইকারদের মন জয় করে এবং এর মূল্য স্বল্প হওয়ার জন্য এর চাহিদা অনেকটা বেশি।উচ্চ থেকে নিম্ন ব্যক্তিরা সকলেই এই বাইক ব্যবহার করতে পারবেন। আমরা এই আর্টিকেলে বাইকটির সমস্ত তথ্য নিয়ে আলোচনা করব। আপনি যদি এই বাইকটির উপর আগ্রহী হয়ে থাকেন তাহলে আমাদের সাথে শেষ পর্যন্ত থাকুন।

Bajaj CT 110X ইঞ্জিন ও মাইলেজ

সিটি 110 এক্স-এ রয়েছে 110সিসি, ডিটিএস-আই ৩ ভালভ ইঞ্জিন। এই ইঞ্জিনটি 8.38 বিএইচপি পাওয়ার আর 8.05 এনএম টর্ক জেনারেট করে। ফলে শহরের রাস্তায় উড়িয়ে চলা আর উঁচুতে চড়াই কেউটাই আপনাকে আটকাতে পারবে না। এটা কম বলে 96 কিমি/লিটার মাইলেজও দেবে, অর্থাৎ প্রতি টাকায় বেশি দূর যাওয়ার স্বপ্ন পূরণ হবে।

Bajaj CT 110X ENGINE
__ ENGINE & MILEAGE

Bajaj CT 110X ডিজাইন

নতুন বাজাজ সিটি 110 এক্স ডিজাইনের কথাই বললে, চোখ আটকে যাবেই।স্মার্ট আর স্পোর্টি লুকের এই বাইকটিতে আছে আকর্ষণীয় রঙের অপশন – কালো – লাল, ম্যাট ওয়াইল্ড গ্রিন, কালো – নীল। হেডলাইটের ডিজাইনটা বেশ আকর্ষণীয়, যেন রাস্তা চিরে তাকিয়ে আছে। টেললাইটও এলইডি, যা বাইকটিকে একটা মডার্ন টাচ দিয়েছে। গ্রাফিক্সের ব্যবহারও বেশ সুন্দর, যা বাইকের স্পোর্টি লুককে আরও বাড়িয়েছে। সামনের ব্রড ওয়াইড হ্যান্ডেলবার রাইডিং অভিজ্ঞতাকে আরও আরামদায়ক করবে। এছাড়াও, 18 ইঞ্চির চাকা আর উঁচু গ্রাউন্ড ক্লিয়ারেন্স বাইকটিকে যেকোনো রাস্তায় সহজে চালানো যায়।এটি একটি আকর্ষণীয় ফ্যাশনাওয়াল ও আরামদায়ক বাইক যা আপনার রাস্তায় ঘুরে বেড়ানোর অভিজ্ঞতা কে অন্য মাত্রায় নিয়ে যায়।

Bajaj CT 110X DESIGN
__LOOK

Bajaj CT 110X নিরাপত্তা

নিরাপত্তার বিষয় বাজাজ সিটি 110 এক্স আপনাকে কোন অসুবিধে পড়তে দেবে না।এই বাইকে রয়েছে কম্বাইন ব্রেকিং সিস্টেম, যার সঙ্গে আছে ফ্রন্টে ডিস্ক ব্রেক। ফলে যেকোনো গতিতে বা আবহাওয়ায় হঠাৎ ব্রেক করতে হলেও আপনি পুরো নিয়ন্ত্রণে থাকবেন। এছাড়াও, ব্যাপক হেডলাইট আর টেললাইট রাতের পথেও উজ্জ্বল আলো দেবে। নিরাপত্তা বেল্ট, হেলমেট হুক আর সাইড স্ট্যান্ডের মতো ফিচারও রয়েছে এই বাইকে। অতিরিক্ত গ্রাউন্ড ক্লিয়ারেন্স আপনাকে খারাপ রাস্তায় চলাতেও নিশ্চিন্তি দেবে। এতগুলো নিরাপত্তা ফিচারের সঙ্গে বাজাজ সিটি 110এক্স আপনার যাত্রাপথে নিশ্চিত সঙ্গী হয়ে উঠবে।

Bajaj CT 110X SAFETY
__ SAFETY

Bajaj CT 110X মূল্য ও লঞ্চের তারিখ

বাজাজ সিটি 110 x এর নির্ভরযোগ্যতা, আরাম আর পারফরম্যান্সের তুলনায় মূল্য খুবই সাশ্রয়ী। গাড়িটির এক্স শোরুমের মূল্য 69 হাজার থেকে শুরু, আপনি এটা লোন এর মাধ্যমেও নিতে পারেন, খুবই কম পরিমাণে সুদের (9.49%) পরিবর্তে।এই বাইকটিকে ক্রয় করতে আপনার নিকটবর্তী শোরুমের সাথে যোগাযোগ করতে পারেন।

Bajaj CT 110X
__ Bajaj CT 110X

Bajaj CT 110X স্পেসিফিকেশন

বাজাজের নতুন বাজ 110 এক্স বাইকটি আসছে একগুচ্ছ দারুণ ফিচার নিয়ে। চলুন, একটু কাছে থেকে দেখে নেওয়া যাক এই বাইকের ইঞ্জিন, মাইলেজ, ব্রেকিং সিস্টেম, টায়ার, সাসপেনশন, এবং ডিজাইনের খুঁটিনাটি:

  • ইঞ্জিন: 110সিসি, ডিটিএস-আই 3 ভালভ ইঞ্জিন 8.38 বিএইচপি পাওয়ার আর 8.05 এনএম টর্ক জেনারেট করে।
  • মাইলেজ: 96 কিমি/লিটার। অর্থাৎ প্রতি টাকায় বেশি দূর যাওয়া সম্ভব।
  • ব্রেকিং সিস্টেম: ডিস্ক ব্রেক সঙ্গে কম্বাইন ব্রেকিং সিস্টেম। যেকোনো অবস্থাতেই বাইকটি নিয়ন্ত্রণে রাখা সহজ।
  • টায়ার: 18 ইঞ্চির চাকা আপনাকে যেকোনো রাস্তাতেই নিশ্চিন্তে চালাতে সাহায্য করবে।
  • সাসপেনশন: টেলিস্কপিক ফ্রন্ট ফর্কস আর নাইট্রক্স মনোশক সাসপেনশন আরামদায়ক রাইড নিশ্চিত করবে।
  • ডিজাইন: স্মার্ট ডিজাইনের হেডলাইট, টেললাইট আর গ্রাফিক্স এই বাইকটিকে দিয়েছে একটা স্পোর্টি লুক। তিনটি আকর্ষণীয় রঙ – কালো – লাল, ম্যাট ওয়াইল্ড গ্রিন, কালো – নীল উপলব্ধ।

Similar Posts